News Live

স্বস্তিকা-সৃজিত-পরমব্রত: লেন্সবন্দি! পরমব্রত মঞ্চে দুই এক্সের মধ্যে স্বস্তিয়াকা কাছে এসে কী বললেন?

একসর, এস, , কছ, দই, পরমবরত, বললন, মঞচ, মধয, লনসবনদ, সবসতকসজতপরমবরত, সবসতযক

তারকা খচিত ফিল্মফেয়ার মঞ্চ। সেরাদের নাম ঘোষণা, পুরষ্কার দেওয়া এবং আরও অনেক কিছু পুরস্কারের মধ্যে ঘটে। সেই ঘটনার সাক্ষী থেকে যায় শুধু ক্যামেরার লেন্স। বাংলা ফিল্মফেয়ারের মঞ্চে এমন অকপট মুহূর্তগুলো লেন্সে ধরা পড়ে।

অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপা ধায়া আবারও ফিল্মফেয়ার মঞ্চে প্রাক্তনদের মধ্যে ধরা পড়লেন। এই দিন, স্বস্তিকা মঞ্চে ঘিরে ছিলেন তার দুই প্রাক্তন সৃজিত এবং পরমব্রত। এবার ফিল্মফেয়ারে ‘শিবপুর’ ছবির জন্য সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতেছেন স্বস্তিকা। সেই পুরস্কার নিতে মঞ্চে উঠেছিলেন স্বস্তিকা। ঠিক তখনই মঞ্চে দাঁড়িয়ে ছিলেন পরিচালক সৃজিত মুখোপা ধায়া। একজন পরিচালক ছিলেন যার সাথে আমার একসময় পরিপূর্ণ প্রেম ছিল। এদিকে ঠিক সেই মুহূর্তে আবার পরিচালকের আসনে পরমব্রত চট্টোপা ধায়া। স্বস্তিয়া, যার সাথে আমি একবার প্রেমে পড়েছিলাম। কিন্তু সে সবই এখন অতীত। এখন তারা সবাই পুরানো দিন ভুলে শুধু ভালো বন্ধু।

একদিন স্বস্তিকা পুরস্কার পাওয়ার পর সৃজিতের সঙ্গে কথা বলার সময় পরমব্রত মজা করে বলেছিলেন, ‘আমি এখন মঞ্চে অনেক প্রিয় বন্ধুর কাছে’। তখন কেউ তাকে মজা করে বলল, কাছে এসে এই কথা বল। তারপর সেই কথা শোনার পর স্বস্তিকার তাঁর কাছে এসে মাইক নিয়ে আবারও একই কথা বললেন। প্রসঙ্গত, ‘শিবপুর’ ছবিতে স্বস্তিকার সহ-অভিনেতা ছিলেন পরমব্রত।

পুরস্কার পাওয়ার পর স্বস্তিকা মজা করে বলেন, ‘খুব ভালো লাগছে। এটা প্রতি বছর আমার অভ্যাসে পরিণত হচ্ছে। এটি আমার 5 নম্বর ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। আরও এক ডজন হলেও রাজা হব। অভিনেত্রী আলাদাভাবে ছবিটির চিত্রগ্রাহক প্রসেনজি চৌধুরী এবং সমস্ত দলের সদস্যদের পুরস্কারের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন- ‘রাতে মাতাল বলে ডাকো…’, সালমানের অপমান! ‘অভদ্র হওয়ার জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী নই’, কুণাল স্পষ্টই বললেন

পরম-স্বস্তিকার সেই অকপট মুহূর্তটি ফিল্মফেয়ারের তরফে পোস্ট করা হয়েছে…

ফিল্মফেয়ারের মঞ্চে পরম-সবস্তিকা
ফিল্মফেয়ারের মঞ্চে পরম-সবস্তিকা

প্রসঙ্গত, এক সময়ের প্রেমিকরা, যদিও বিবাহিত, সুস্থ এবং জীবিত, তারা এখন সত্যিকারের ভালো বন্ধু। আর অভিনেত্রী স্বস্তিয়া মুখুপা ধ্যায় আদ্য প্রণখোলা মোনারে। শুধু বিয়েই নয়, স্ত্রী পিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গেও তার সম্পর্ক খুবই মধুর। কিছু দিন আগে, অভিনেত্রী তার প্রেমিকের সাথে আড্ডা দিতে পারমারের যোধপুর পার্কের বাড়িতে পৌঁছেছিলেন।

এই বন্ধুত্ব নতুন না হলেও বিচ্ছেদের পর সৃজিতের সঙ্গে শাহজাহানের নির্দেশনায় রিজেন্সি সিনেমায় কাজ করেছেন স্বস্তিকা। তবে এ বিষয়ে তিনি আগেই স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন, ‘বিয়ের ১০ বছর পর স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক ভাইবোনের মতো হয়ে যায়। এবং সেখানে সম্পর্ক 15 বছর আগে। শিল্পের সব সহকর্মী। প্রাক্তন প্রেমিক কিছুই বলে না।


Leave a Comment